শনিবার , ৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

মিখাইল গর্বাচেভের শেষকৃত্য আজ, থাকছেন না পুতিন

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২ ৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সাবেক সোভিয়েত নেতা মিখাইল গর্বাচেভ ৯১ বছর বয়সে মারা যাওয়ার চার দিন পর আজ স্থানীয় সময় শনিবার তাকে সমাহিত করা হচ্ছে। বিবিসি জানিয়েছে, মস্কোতে মিখাইল গর্বাচেভকে অল্প সময়ের মধ্যে সমাহিত করা হবে।

ক্রেমলিন জানিয়েছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আজ মিখাইলের শেষকৃত্যে উপস্থিত থাকতে পারবেন না। কাজের সূচি আগে থেকেই নির্ধারিত থাকায় তিনি সেখানে উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলেও জানানো হয়েছে।

সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পেছনে মিখাইল গর্বাচেভের ভূমিকা দুইভাবে মূল্যায়ন করা হয়। পশ্চিমাদের কাছে মিখাইল প্রিয় পাত্র হলেও নিজ দেশে তিনি নিন্দিত। আজ তার শেষকৃত্যে রুশ প্রেসিডেন্টের অনুপস্থিতির বিষয়টিও অপমান হিসেবে দেখছেন অনেকেই।

সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনকে শতাব্দীর সবচেয়ে বড় ভূ-রাজনৈতিক বিপর্যয় বলে অভিহিত করেছিলেন ভ্লাদিমির পুতিন। গর্বাচেভ ১৯৮৫ সালে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। তারপর সাহসী সংস্কারের সূচনা করেন এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন ত্বরান্বিত হয়।

আগে থেকেই জানানো হয়েছে, মিখাইল গর্বাচেভের শেষকৃত্যানুষ্ঠান পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় হবে না। তবে গর্বাচেভকে ‘মিলিটারি গার্ড অব অনার’ দেওয়া হবে।

শেষকৃত্যানুষ্ঠানে পুতিনের যোগ না দেওয়া প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেছেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে, ব্যস্ত কর্মসূচির কারণে ৩ সেপ্টেম্বর প্রেসিডেন্ট পুতিন এ কাজ করতে পারবেন না। তাই তিনি বৃহস্পতিবার শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

গত বৃহস্পতিবার রাশিয়ায় রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে গর্বাচেভের কফিনে পুতিনকে গম্ভীর মুখে লাল গোলাপ দিতে দেখা যায়। দেশীয় ঐহিত্য মেনে গর্বাচেভের কফিনের প্রান্ত স্পর্শ করার আগে তিনি রাশান অর্থডক্স নিয়মানুযায়ী বুকে ক্রস চিহ্ন আঁকেন।

গর্বাচেভের শেষকৃত্যানুষ্ঠান সবার‍ জন্য উন্মুক্ত থাকছে এবং পরে তাকে নভোদেভিশি কবরস্থানে সমাহিত করা হবে। গর্বাচেভ ফাউন্ডেশনের প্রেস সেক্রেটারি ভ্লাদিমির পলিয়াকভের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা তাস এ কথা জানিয়েছে।

নভোদেভিশি কবরস্থানে গর্বাচেভের রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী ও রাশিয়ার প্রথম প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন এবং গর্বাচেভের স্ত্রী রাইসাকে সমাহিত করা হয়েছে। রাইসা ১৯৯৯ সালে মারা যান।

২০০৭ সালে ইয়েলৎসিনের মৃত্যুর পর তাকে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হয়েছিল; ভ্লাদিমির পুতিন তার পূর্বসূরির মৃত্যুতে এক দিনের রাষ্ট্রীয় শোকও ঘোষণা করেছিলেন।

কিন্তু গর্বাচেভের বেলায় তেমনটা হচ্ছে না। যদিও পুতিন প্রশাসনের প্রটোকল বিভাগ তার শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানটি আয়োজনের দায়িত্ব নিয়েছে।

পশ্চিমাদের কাছে গর্বাচেভ ছিলেন ‘সোভিয়েতের কারাগারে বন্দি কোটি কোটি মানুষের মুক্তিদাতা’। অন্যদিকে রাশিয়ার নবীন-প্রবীণ অনেকের কাছে তিনি খলনায়ক, ‘যিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন ঠেকাতে ব্যর্থ হয়ে রাশিয়ার বৈশ্বিক প্রভাব মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছিলেন। ’

সূত্র : বিবিসি।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে