শুক্রবার , ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

জেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহিউদ্দিন মহারাজ

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২ ২:২৯ অপরাহ্ণ

পিরোজপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদ্য বিদায়ী জেলা পরিষদ প্রশাসক মো. মহিউদ্দিন মহারাজ। তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গত ১১ সেপ্টেম্বর জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে তার মনোনয়নপত্র জমা দেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের জেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচনেও মহিউদ্দিন মহারাজ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছিলেন। ওই সময় তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন আওয়ামী লীগের সমর্থিত পিরোজপুর-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ মো. শাহ আলম।

জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়ে মহিউদ্দিন মহারাজ বলেন, নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য কোনো দল অংশগ্রহণ করছে না। তাই নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এবং গ্রহণযোগ্যতার জন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী থাকা উচিৎ। তাছাড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে দল শুধু একজন প্রার্থীকে সমর্থন বা মনোনয়ন দিয়েছে। এখানে দলীয় নৌকা প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়নি। সেক্ষেত্রে এ নির্বাচন কোনো দলীয় নির্বাচন নয়। জেলা পরিষদের নির্বাচনে অন্য প্রতীকে নির্বাচন হবে। সেক্ষেত্রে আমি মনে করি এ নির্বাচনটা সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া উচিৎ। কেননা একের অধিক প্রার্থী থাকলে নির্বাচনটাও একটা উৎসবমুখর হয়ে উঠবে। কে জিতবে বা কে হারবে সেটা নির্ধারণ তো করবেন ভোটাররা। তাই তিনি জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোটারদের সব ভয়ভীতি, রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।

পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের এই সাংগঠনিক সম্পাদক আরও বলেন, ২০১৬ সালের জেলা পরিষদের নির্বাচনে আমি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিলাম। চেয়ারম্যান থাকাকালে পিরোজপুর জেলা পরিষদকে একটি দুর্নীতিমুক্ত মডেল জেলা পরিষদে পরিণত করেছি। জেলা পরিষদের মাধ্যমে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন বাস্তবায়ন করেছি। সব উন্নয়নমূলক কাজে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে দলীয় লোকজনকে সম্পৃক্ত করেছি। আগামী ১৭ অক্টোবরের নির্বাচনে আমি দলের মনোনয়ন বোর্ডের কাছে দলীয় মনোনয়নের জন্য আবেদন করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন পুনর্বিবেচনার জন্য অনুরোধ করছি। আশা করি দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে তিনি আমার আবেদন পুনর্বিবেচনা করবেন।

পিরোজপুরে জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা এবং পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য সালমা রহমান হ্যাপি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আছেন- সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও প্রশাসক মো. মহিউদ্দিন মহারাজ, ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল্লাহ আল মাসুদ, নেছারাবাদ উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী মোসা. হাসিনা মনি, সহিদুজ্জামান সিকদার এবং মো. আমির হোসেন। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে (পুরুষ) ৩৪ জন এবং সংরক্ষিত (নারী) সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জিয়াউর রহমান খলিফা।

পিরোজপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলার ৫৪টি ইউনিয়ন, দুটি পৌরসভা এবং সাতটি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানসহ মোট ভোটার সংখ্যা ৭৪৭ জন। এর মধ্যে পিরোজপুর সদর উপজেলায় ভোটার ১০৭ জন, নাজিরপুর উপজেলায় ১২০, নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠী) উপজেলায় ১৪৬, ভাণ্ডারিয়ায় ৯২, কাউখালীতে ৬৮, ইন্দুরকানীতে ৬৮ এবং মঠবাড়িয়া উপজেলায় ১৪৬ জন।

 

facebook sharing button

সর্বশেষ - দেশজুড়ে