শুক্রবার , ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

১০১টি বইয়ের দেনমোহরে বিয়ে

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২ ২:৩৩ অপরাহ্ণ

দেনমোহরানা হিসেবে ১০১টি বইয়ের শর্তে বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন বগুড়ার তরুণ কবি নিখিল নওশাদ ও স্কুল শিক্ষিকা সান্ত্বনা খাতুন। শুক্রবার দুপুরে তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে সম্পন্ন হয়। এর আগে বুধবার বগুড়া শহরের একটি লাইব্রেরি থেকে তারা দুজনই দেনমোহরের জন্য বই কিনে নেন।

বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নের সাতরাস্তা গ্রামের শামছুল ইসলাম আকন্দের পুত্র কবি নিখিল নওশাদ জানান, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে সান্ত্বনা খাতুনের সঙ্গে প্রথম সাক্ষাত হয়। সান্ত্বনা কবিতা পছন্দ করতেন। কবিতা থেকে কবি নিখিল নওশাদকে পছন্দ করতে শুরু করেন। তাদের বিভিন্ন সময়ে দেখা হওয়া কথা বলা থেকে একসময় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে দুজনের। নিখিল একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। আর তার  স্ত্রী সান্ত্বনা খাতুন বগুড়া শহরের উত্তর চেলোপাড়ার দাখিল মাদ্রাসার ইংরেজির শিক্ষক।

নিখিল নওশাদ জানান, প্রেমের সম্পর্কের পর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিলে সে দেনমোহরানার টাকা হিসেবে ১০১টি বই দেওয়ার শর্ত দেয়। সেই হিসেবে বইয়ের তালিকাও দিয়ে দেয়। সেই তালিকা ধরে ঢাকা ও বগুড়া মিলে ৭০টি বই কেনা হয়েছে। বাকি ৩১টি বই বাকি দেখানো হবে। বিয়ের পরে সুযোগ সুবিধা করে বাকি ৩১টি বই দেনমোহরানার টাকা হিসেবে পরিশোধ করতে হবে। সান্ত্বনা খাতুন সোনাতলা উপজেলার কামালেরপাড়া গ্রামের মোস্তাফিজুর রহমানের মেয়ে।

কবি নিখিল নওশাদের নববধূ সান্ত্বনা খাতুন জানান, বিয়ের দেনমোহর হিসেবে যে কোন নারীর কাছে স্বর্ণলংকার খুব প্রিয়। কিন্তু তার কাছে বই অমূল্য সম্পদ। সোনাদানা একসময় ফুরিয়ে যাবে। কিন্তু বই কখনোই ফুরাবে না। কবি নিখিল নওশাদ দেনমোহর হিসেবে বই দিয়েছে এতে সে খুব আনন্দিত। দেনমোহর হিসেবে বই দিয়েছে সেটা তারই বিয়ের পূর্ব শর্ত ছিল। তারা দুজনে মিলে আগামীদিনে একটি লাইব্রেরি গড়তে চান।

সর্বশেষ - আইন-আদালত