রবিবার , ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

‘তাঁর হাসি ভোলার নয়’

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২ ৫:১৩ অপরাহ্ণ

কুইন কনসর্ট ক্যামিলা রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ সম্পর্কে বলেন, ‘তিনি ছিলেন পুরুষশাসিত বিশ্বে “একক নারী”। এটা তাঁর জন্য নিশ্চয়ই কঠিন ছিল। ওই সময় নারী প্রধানমন্ত্রী বা প্রেসিডেন্ট ছিলেন না। তিনিই ছিলেন একমাত্র নারী। তাই আমার মনে হয়, তিনি তাঁর দায়িত্ব খুব ভালোভাবে পালন করেছেন।’

রানি এলিজাবেথ

রানি এলিজাবেথ
ফাইল ছবি

রানির মৃত্যুর পর বেশ কয়েকবার মা সম্পর্কে বার্তা দিয়েছেন রাজা চার্লস। তিনি রাজা হিসেবে তাঁর দায়িত্ব নেওয়ার ভাষণের সময় রানিকে স্মরণ করে বলেন, ‘ডার্লিং মামাকে অনেক মিস করব।’

ক্যামিলা তাঁর দেওয়া বার্তায় আরও বলেছেন, ‘রানির ছিল সুন্দর নীল চোখ। তিনি যখন হাসতেন, তা তাঁর পুরো চেহারায় ফুটে উঠত। আমি সর্বদা তাঁর হাসি স্মরণ করব। সেই হাসি সহজে ভোলার নয়।’

ক্যামিলা রাজা চার্লসের দ্বিতীয় স্ত্রী। ২০০৫ সালে চার্লসের সঙ্গে বিয়ের পর থেকে তাঁর জনপ্রিয়তা বেড়েছে। তবে এর আগে রাজা চার্লসের সঙ্গে তাঁর প্রথম স্ত্রী প্রিন্সেস ডায়ানার সম্পর্ক ভাঙার পেছনে অনেকেই ক্যামিলার দিকে আঙুল তোলেন।

গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রিন্সেস ডায়ানার মৃত্যুর ঘটনা সবার কমবেশি মনে আছে। ১৯৯৭ সালের ওই ঘটনা সে সময় বিশ্বকে বেশ নাড়া দিয়েছিল। প্রিন্সেস অব ওয়েলস ডায়ানা ছিলেন তৃতীয় চার্লসের প্রথম স্ত্রী। তবে ডায়ানাকে বিয়ের আগে, এমনকি তাঁর সঙ্গে সংসার করার সময়ও ক্যামিলার প্রেমে মজে ছিলেন চার্লস। একপর্যায়ে ডায়ানার সঙ্গে চার্লসের বিচ্ছেদ হয়।

ওই বিচ্ছেদের জন্য অনেকেই দায়ী করেন ক্যামিলার সঙ্গে চার্লসের প্রেমের সম্পর্ককে। ক্যামিলাকে ঘিরে যে সংসারে অশান্তি চলছিল, তার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন ডায়ানাও।

চার্লসের সঙ্গে ডায়ানার বিচ্ছেদ ও ১৯৯৭ সালে তাঁর মৃত্যুর পর ক্যামিলার বিরুদ্ধে জনরোষ বাড়তে থাকে। সে সময় ব্রিটেনের মাত্র ৭ শতাংশ মানুষ মনে করত, ক্যামিলা রানি হওয়ার যোগ্য। পরে ২০০৫ সালে এসে ক্যামিলাকে বিয়ে করেন চার্লস। এ সময় তাঁর খেতাব কী হবে, তা নিয়ে বিতর্ক দেখা দেয়।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ সম্পর্কে এসব তথ্য জানতেন কি?

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ

ব্রিটেনে রানি কে হবেন, তা ঠিক হয় উত্তরাধিকারসূত্রে; অর্থাৎ রানি হবেন তিনিই, যিনি পূর্বসূরির কাছ থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে এই খেতাব পাবেন। তাঁর মর্যাদা, কর্মকাণ্ড আর দায়িত্বগুলোও হবে একজন রাজার মতোই। যেমনটি ছিলেন সদ্য প্রয়াত দ্বিতীয় এলিজাবেথ। তিনি রাজসিংহাসনে বসেছিলেন বাবার উত্তরাধিকারসূত্রে।

অন্যদিকে রাজাকে যিনি বিয়ে করবেন, তাঁকে বলা হবে কুইন কনসর্ট। যেটা বলা হচ্ছে ক্যামিলাকে। তিনি কখনোই রাজসিংহাসনে বসতে পারবেন না। কারণ, তৃতীয় চার্লসকে বিয়ের মধ্য দিয়ে রাজপরিবারের সদস্য হয়েছেন তিনি।

ব্রিটেনের রাজপরিবারের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সাধারণত কুইন কনসর্টকে রাজার সঙ্গেই মুকুট পরিয়ে দেওয়া হয়। তবে ওই অনুষ্ঠান অতটাও জমকালো হয় না। কুইন কনসর্ট সরকারের কোনো আনুষ্ঠানিক পদে থাকেন না। রাষ্ট্রীয় কোনো নথিপত্র দেখার ক্ষমতাও তাঁর নেই। একজন কুইন কনসর্টের মূল দায়িত্ব হলো রাজার পাশে থাকা এবং বিভিন্ন বিষয়ে তাঁকে সমর্থন জোগানো।

রাজপরিবারের ওয়েবসাইট বলছে, রাজা চার্লসের সঙ্গে বিয়ের পর থেকে ক্যামিলা ৯০টির বেশি দাতব্য প্রতিষ্ঠানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। এই প্রতিষ্ঠানগুলো স্বাস্থ্য, শিক্ষার প্রসার, শিল্পকলা, প্রাণিকল্যাণ এবং ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের শিকার নারীদের জন্য কাজ করছে।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে