বুধবার , ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

হিরো স্প্লেন্ডারের নতুন মডেল এলো বাজারে

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২ ৮:৫৪ পূর্বাহ্ণ

ভারতীয় বাইক নির্মাণ প্রতিষ্ঠান হিরো একের পর এক বাইক আনছে বাজারে। সেই শুরু থেকেই জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছে এই বাইক। এবার পুরোনো বাইকের নতুন মডেল নিয়ে হাজির হলো হিরো মোটোকর্প।

হিরোর স্প্লেন্ডার বাইকটি দামে যেমন সস্তা তেমনি এর মাইলেজও চমৎকার। এমনকি এটি বেশ জনপ্রিয় বাইক ছেলে-বুড়ো সবার কাছেই। যারা একটু কম দামে ভালো বাইক খোঁজেন তাদের প্রথম পছন্দ থাকে হিরো স্প্লেন্ডার। হিরো স্প্লেন্ডারের আপগ্রেড ভার্সন স্প্লেন্ডার প্লাসও সমান জনপ্রিয়।

এবার সেই জনপ্রিয় স্প্লেন্ডার প্লাস বাইকের একটি নতুন রঙের মডেল লঞ্চ করল হিরো মোটোকর্প। যার নাম সিলভার নেক্সাস ব্লু। এই নতুন কালার স্কিমে সিলভার বডি প্যানেল ও তার সঙ্গে নীল গ্রাফিক্স দেওয়া হয়েছে। অ্যালয় হুইলের ফিনিশিংয়ে দেওয়া হয়েছে কালো রং। নতুন এই কালার স্কিম বাইকটিকে দিয়েছে একেবারে নতুন এক রূপ দিয়েছে।

টিউবিউলার ডাবল ক্র্যাডল ফ্রেম রয়েছে বাইকটিতে। সামনে দেওয়া হয়েছে হাইড্রলিক শক অ্যাবজর্বার এবং পেছনে ৫-স্টেপ অ্যাডজাস্টেবিলিটি। ব্রেকিং ডিউটির জন্য রয়েছে বাইকের সামনে ও পিছনে ১৩০ এমএম ড্রাম থাকছে। এছাড়াও ইন্টিগ্রেটেড ব্রেকিং সিস্টেম অফার করছে বাইকটি।

এই বাইকটিতে দেওয়া হয়েছে ৮০/১০০ টায়ার। যেটি টিউবলেস-টাইপ টায়ার। ফলে পাংচার হলে চালক খুব সহজেই তা বুঝতে পারবেন। নতুন কালার মডেলটিতে তেমন কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। স্ট্যান্ডার্ড মডেলগুলোর মতোই এটিতেও থাকছে এয়ার-কুলড ৯৭.২সিসির ৪ স্ট্রোক ইঞ্জিন।

বাইকটি সর্বাধিক ৭.৯১ পার আওয়ার পাওয়ার এবং ৮.০৫ এনএম পিক টর্ক আউটপুট দিতে পারবে। ফুয়েল ইঞ্জেকশন ও ৪ স্পিড ট্রান্সমিশনের সঙ্গে পেয়ার করা রয়েছে বাইকটি। ইঞ্জিনটিকে দ্রুত আয়ত্তে আনতে বাইকে একটি ইলেকট্রিক স্টার্টারও দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও বাইকে আই৩এস প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে ইঞ্জিনের স্টার্ট ও স্টপ প্রসেস হবে ঝক্কিবিহীন। মোটরসাইকেলটি নিউট্রালে থাকলে এই ইঞ্জিন স্বয়ংক্রিয় ভাবে বন্ধ হয় এবং চালক ক্লাচ পুল করলেই তা অটোমেটিক্যালিই স্টার্টও হয়ে যায়। ফলে বাইকটিতে জ্বালানি খরচও বাঁচবে। ভারতে এক্স শোরুমে বাইকটি পাওয়া যাবে মাত্র ৭০ হাজার ৬৫৮ রুপিতে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৯১ হাজার ৮০০ টাকা।

সূত্র: এক্সপ্রেস ড্রাইভস

সর্বশেষ - আইন-আদালত