সোমবার , ১৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

অসময়ে পদ্মায় পানি বাড়ছে, তলিয়ে যাচ্ছে চরের ফসল

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
অক্টোবর ১৭, ২০২২ ৮:৩৬ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার এনামুল হক বলেন, দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতায় তাঁরা দেখেছেন যে সাধারণত অক্টোবর মাসের শেষ পর্যন্ত পদ্মায় পানি বাড়ার প্রবণতা থাকে। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে কয়েক বছর ধরে নভেম্বরেও পানি বাড়ছে। উজানে বন্যা না হলে বাংলাদেশে বন্যার আশঙ্কা নেই। তবে চরাঞ্চল প্লাবিত হয়ে ফসলের ক্ষতি হতে পারে। ইতিমধ্যে জেলার বাঘার চর প্লাবিত হয়েছে।

জেলার বাঘা উপজেলার সুলতানপুরে গিয়ে দেখা যায়, চাষি মোস্তফা আলী খেতের পাশে দাঁড়িয়ে হাহাকার করছেন। তাঁর ২০ বিঘা জমিতে রোপণ করা পেঁয়াজ তলিয়ে গেছে। একই জমিতে পেঁয়াজের সঙ্গে আখও রোপণ করা হয়েছিল। তিনি পানি হাতড়ে রোপণ করা পেঁয়াজ তুলে দেখালেন ইতিমধ্যে তাতে শিকড় গজিয়েছে।

উপজেলার কলিগ্রামের চাষি আসাফুদ্দৌলা বলেন, রোববার সারা দিন বাঘার চরে পানি বেড়েছে। আর এক দিন পানি বাড়লে তাঁর পাঁচ বিঘা জমির পেঁয়াজ ডুবে যাবে। উপজেলার মর্শিদপুর চরে এক বিঘা জমিতে কপি লাগিয়েছেন চাষি কামরুল ইসলাম। তাঁর টমেটোখেত ডুবে গেছে।

বাঘা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সফিউল্লাহ সুলতান বলেন, বাঘার চরের জমির পরিমাণ ৬ হাজার ৩০ হেক্টর। তার মধ্যে আবাদি জমির পরিমাণ ৫ হাজার ৫৬০ হেক্টর। চরের জমি খুবই উর্বর। সব জমিতেই চমৎকার সবজি হয়। পানি আরেকটু বাড়লে সর্বনাশ হয়ে যাবে।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে