শুক্রবার , ২১ অক্টোবর ২০২২ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

নারায়ণগঞ্জে জাকির হত্যা মামলায় ইউপি মেম্বারসহ আসামি ১৯

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
অক্টোবর ২১, ২০২২ ৩:০৭ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বক্তাবলী ইউনিয়নের চর বক্তাবলী গ্রামের জাকির হত্যাকান্ডের ঘটনায় স্থানীয় ইউপি মেম্বার রশিদ আহাম্মেদসহ ১৯ জনকে আসামি করে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে নিহত জাকিরের স্ত্রী মোর্শেদা বেগম বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলার আসামিরা হলেন, বক্তাবলী এলাকার বাসিন্দা আওলাদ হোসেন, ইউপি মেম্বার রশিদ আহাম্মেদ, রাজিব, গণি, আরিফ, সজিব, হৃদয়, আবুল হোসেন, কবির হোসেন, নবী হোসেন, রাজু খাঁ, আমিন, সাইদুল, কাদির সিপাই, আবুল হোসেন, সোহেল, জসিম ওরফে কালা জসিম, কবির হোসেন, আশিক।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ৫ মে বাদির বড় ছেলে (নিহত জাকিরের ছেলে) অন্তুকে ডেকে নিয়ে যায় অত্র মামলার এজাহারনামীয় ১৬নং আসামি সোহেল। পরে মামলার ১নং আসামি আওলাদ এর গরুর ফার্মে অন্তুকে দুধের সঙ্গে বিষ জাতীয় দ্রব্যাদি মিশ্রন করিয়ে হত্যা করা হয়। ওই মামলায় ১নং আসামি আওলাদকে পিবিআই নারায়ণগঞ্জ গ্রেফতারের পরে সে দীর্ঘ ১ মাস ১৩ দিন জেলহাজতে ছিল। চলতি বছরের ১২ সেপ্টেম্বর আওলাদ জামিনে বের হয়। পরদিন ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে আওলাদ, আবুল হোসেন, সোহেল ও আশিক বাদির স্বামী জাকিরকে মারধর। পরের দিনও আমার স্বামী জাকিরকে মারধর করে তুলে নেয়ার চেষ্টা করে এবং জাকিরকে মামলা তুলে নিতে হুমকী দেয় অন্যথায় জাকিরকে প্রাণে মেরে ফেলবে এবং বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিবে বলেও হুমকী দেয়।

এ বিষয়ে গত ১৪ সেপ্টেম্বর জাকির বাদি হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি জিডি দায়ের করেন। এতে বিবাদীরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার স্বামীকে অপহরণ করে রশিদ মেম্বারের অফিসে অফিসে নিয়ে যায়। আমার স্বামীকে অপহরণের খবর পেয়ে আমার মেয়ে জামাতা জাকির হোসেন ও তার বন্ধু মোতালিব রশিদ মেম্বারের অফিসে গিয়ে বলে ভাই যা হওয়ার হয়েছে আমরা ওই বিষয়ে আর সামনে আগাবো না। আমরা জিডি প্রত্যাহার করিয়া নিব। ওই অনুরোধের পরে রশিদ মেম্বার তার মেয়ের জামাতাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে ও অপহৃত জাকিরকে কেটে দুই টুকরো করবে বলে হুমকী দেয়।

এর কিছুক্ষণ পরে অপহৃত জাকিরের মেয়ে জাকিয়া সুলতানা জুতি অপহৃত জাকিরের মোবাইল ফোনে কল করলে সে জানায় তাকে সকল বিবাদীরা আটকে রেখেছে। এরপর থেকে জাকির নিখোঁজ ছিল। পরে ফেসবুকের মাধ্যমে তারা জানতে পারেন বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া এলাকায় এক অজ্ঞাতনামা পুরুষের লাশ পাওয়া গেছে। পরে মামলার বাদি ও তার মেয়ে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে এসে জাকিরের লাশ শনাক্ত করেন।

বন্দর থানার ওসি মো. আবু বক্কর ছিদ্দিক জানান, জাকির হত্যাকান্ডের ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে বন্দর থানায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় ১৯ জনকে আসামী করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে