রবিবার , ৩০ অক্টোবর ২০২২ | ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

ঢাকা প্রতিদিনের ডিক্লারেশন বাতিলের আদেশ চেম্বারেও বহাল

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
অক্টোবর ৩০, ২০২২ ৩:৩৫ অপরাহ্ণ

না জানিয়ে ছাপাখানা পরিবর্তনের অভিযোগে দৈনিক ঢাকা প্রতিদিন পত্রিকার ঘোষণাপত্র (ডিক্লারেশন) বাতিল করে দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছিলেন হাইকোর্ট। ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যান ঢাকার জেলা প্রশাসক (ডিসি)। ওই আপিলের ওপর শুনানি নিয়ে ‘নো অর্ডার’ আদেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত। ফলে দৈনিক ঢাকা প্রতিদিনের ডিক্লারেশন বাতিলের আদেশ চেম্বারেও বহাল রয়েছে।

ডিসির আপিল আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার (৩০ অক্টোবর) আপিল বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহীমের চেম্বার জজ আদালত নো অর্ডার দেন। একই সঙ্গে ঢাকা প্রতিদিনের পক্ষে করা আবেদন নিষ্পত্তি করার জন্য প্রেস কাউন্সিলের আপিলটি ট্রাইব্যুনালকে নিষ্পত্তি করার জন্য বলেছেন চেম্বার আদালত।

জাগো নিউজকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন রিটকারীদের পক্ষের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার হারুনুর রশিদ খান।

আদালতে ডিসির আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল। অন্যদিকে পত্রিকার পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার হারুনুর রশিদ খান।

গত ১৭ অক্টোবর দৈনিক ঢাকা প্রতিদিন পত্রিকার ঘোষণাপত্র (ডিক্লারেশন) বাতিল করে দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। ওইদিন হাইকোর্টের বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ওইদিন রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারীদের পক্ষের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক। রিট শুনানিতে তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ।

এর আগে গত ৩১ আগস্ট দৈনিক ঢাকা প্রতিদিন পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল করা হয়েছিল। ওই আদেশের বিষয়ে প্রথমে গত ৫ সেপ্টেম্বর প্রেস কাউন্সিলে আপিল আবেদন করা হয়। আপিল আবেদনে পত্রিকাটি প্রকাশের অনুমতি না পেয়ে হাইকোর্টে গত ১৫ সেপ্টেম্বর রিট করে। ওই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত এ আদেশ দেন।

ঢাকা প্রতিদিনের পক্ষে শুনানি করে আইনজীবী শাহ মঞ্জুরুল হক বলেন, ঢাকার ডিসি পত্রিকাটির প্রকাশনার অনুমতি বাতিল করে দিয়েছিলেন। সেটা হাইকোর্ট স্টে করেছেন। হাইকোর্ট একই সঙ্গে রুল দিয়ে চার সপ্তাহের মধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়, চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর, ঢাকা জেলা প্রশাসককে (ডিসি) এ রুলের জবাব দিতে বলেছেন।

ঢাকা প্রতিদিনের সম্পাদক মনজুরুল বারী নয়ন জাগো নিউজকে বলেন, আমরা যে প্রেস থেকে পত্রিকা ছাপাতাম, তা পরিবর্তন করে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ডিসিকে চিঠি দিয়েছিলাম। তখন কোনো প্রতিক্রিয়া না দিয়ে ৩১ আগস্ট তারা পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল করেন।

ডিক্লারেশন বাতিলের আদেশে বলা হয়, পত্রিকাটি বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেসে ছাপা হওয়ার কথা থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে সেখানে ছাপা হয় না, যা ছাপাখানা ও প্রকাশনা আইনের লঙ্ঘন।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে পত্রিকাটির সম্পাদক বলেন, নিয়ম হচ্ছে, একই জেলার মধ্যে ছাপাখানা পরিবর্তন করতে চাইলে চিঠি দিয়ে জেলা প্রশাসককে (ডিসি) অবহিত করলেই হয়। জুরিসডিকশন পরিবর্তন করলে অনুমতি নিতে হয়। তার দাবি, যে কারণ দেখিয়ে জেলা প্রশাসন এ পদক্ষেপ নিয়েছেন, সেটা দেখলে ঢাকার অধিকাংশ পত্রিকার ডিক্লারেশন ‘থাকবে না’।

মনজুরুল বারী নয়ন বলেন, গত ২ সেপ্টেম্বর থেকে তারা পত্রিকা ছাপানো বন্ধ রেখেছেন। হাইকোর্টের আদেশের পর আবার পত্রিকা ছাপানোর প্রস্তুতি নিয়ে ছাপানোর কাজ করে আসছেন।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে

আপনার জন্য নির্বাচিত