শুক্রবার , ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

কিশোর গ্যাং-শিবিরকর্মী দিয়ে বিএনপি মাঠ গরম করবে: পরশ

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২৩ ৪:০৯ অপরাহ্ণ

কিশোর গ্যাং ও শিবিরকর্মী দিয়ে বিএনপি মিছিল-মিটিং করে মাঠ গরম করবে বলে মন্তব্য করেছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ। তিনি বলেন, ‘বিএনপির পদযাত্রায় কোনো জনসম্পৃক্ততা নেই। কারণ তাদের অত্যাচারের কথা জনগণ ভোলেনি। ২০১৪ সালের আগুন সন্ত্রাসের কথাও তারা ভোলেননি। সার-বিদ্যুতের জন্য কৃষকদের ওপর গুলির কথাও দেশের জনগণ ভুলে যাননি।’

বিএনপি এখন হতাশায় ভুগছে মন্তব্য করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, ‘তারা (বিএনপি) হতাশায় ভুগছেন। এতে তাদের সন্ত্রাসী চেহারাও বেরিয়ে আসছে। কিছু কিশোর গ্যাং ও শিবিরের কর্মী দিয়ে তাদের মিছিল-মিটিং গরম করবে। কিন্তু তা আর কত দিন?’

শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) যুবলীগ আয়োজিত প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সঞ্চালনায় এতে কেন্দ্রীয়, মহানগর ও বিভিন্ন ওয়ার্ড যুবলীগের নেতারা অংশ নেন।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি গাজীপুর ও ১১ ফেব্রুয়ারি লক্ষ্মীপুরসহ বিভিন্ন জেলায় ‘পদযাত্রার নামে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, সহিংস রাজনীতি, প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া, জনগণ ও পুলিশের ওপর হামলা, সাধারণ মানুষের জানমালের ক্ষতিসহ গাড়িতে অগ্নিসংযোগে’র প্রতিবাদে এ সমাবেশ করা হয়।

বিদেশি প্রভুদের প্রেসক্রিপশনে আগামী জাতীয় নির্বাচন হবে না জানিয়ে শেখ পরশ বলেন, ‘নির্বাচন হবে শেখ হাসিনার অধীনেই। নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় একটা অবাধ, নিরপেক্ষ ও যথাযথ পদ্ধতিতে নির্বাচন হবে।’

বিএনপি লাশের রাজনীতি করতে চাচ্ছে অভিযোগ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিএনপি এখন চাচ্ছে লাশের রাজনীতি করতে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল করতে বিএনপি বিভিন্ন অপচেষ্টা করবে। তারা জানে, সঠিক নির্বাচন হলে ১৫১ সিট তারা পাবেন না। তাই তারা লাশের রাজনীতি করে নির্বাচন বানচাল করতে চান।’

জনগণের বিএনপির নেতৃত্বে কোনো আস্থা নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘তারা প্রতারক গোষ্ঠী। জনগণের ভোট পেলে জনগণকে ভুলে যেতে তাদের দুই সেকেন্ডও লাগে না। আমি আহ্বান করতে চাই, আপনাদের কাছে এবং একইসঙ্গে বিএনপির নেতাদের চ্যালেঞ্জ করতে চাই যে, অনুগ্রহ করে ২০০১ সালে তাদের নির্বাচনী ইশতিহার বের করে দেখান ভোটারদের দেওয়া কয়টি প্রতিশ্রুতি তারা পূরণ করেছিলেন। তাহলেই প্রমাণিত হয়ে যাবে যে, তারা প্রতারণার রাজনীতি করে, প্রতিশ্রুতিভঙ্গের রাজনীতি করে।’

শেখ পরশ আরও বলেন, ‘আমরা জনগণের পাশে থাকার কাজ অব্যাহত রাখবো। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার প্রশ্নে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার প্রশ্নে যুবলীগ আপসহীন, ভ্যানগার্ড হিসেবে আমরণ সজাগ এবং সরব দৃষ্টি রাখবো। প্রয়োজনে শক্তিও প্রয়োগ করবো।’

যুবলীগের কর্মসূচি
প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে আগামী দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস, সহিংস রাজনীতি, প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া, জনগণ ও পুলিশের ওপর হামলার প্রতিবাদে ১৮ ফেব্রুয়ারি শনিবার ঢাকা মহানগর ছাড়া দেশের সব বিভাগীয় শহরে প্রতিবাদ সভা করবে যুবলীগ। ১৯ ফেব্রুয়ারি দেশের সব উপজেলা, থানা ও পৌরসভায় প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল করা হবে। ২০ ফেব্রুয়ারি সব জেলায় প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল এবং ২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মহানগরে জাতীয় সংসদের আসনভিত্তিক ও সব মহানগরের প্রতিটি থানায় প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল হবে।

সর্বশেষ - আইন-আদালত