বুধবার , ২৯ মে ২০২৪ | ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. উপ-সম্পাদকীয়
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. চাকরি
  9. জাতীয়
  10. জীবনযাপন
  11. তথ্যপ্রযুক্তি
  12. দেশগ্রাম
  13. দেশজুড়ে
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

হজ মেডিকেল টিমের সঙ্গে যেতে পারছেন না ৯ জন

প্রতিবেদক
নিউজ ডেস্ক
মে ২৯, ২০২৪ ১:০৬ অপরাহ্ণ

হজযাত্রীদের চিকিৎসা সেবা দিতে নার্সদের নিয়ে ৫৫ জনের একটি টিম করা হয়। সেই টিম থেকে নয়জনকে বাদ দিতে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বাতিলের বিষয়ে করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে হাইকোর্টের আদেশ চেম্বার জজ আদালত ও আপিল বিভাগেও বহাল রইলো। সেই সঙ্গে ওই নয়জন সম্মিলিত হজ মেডিকেল টিমের সঙ্গে যেতে পারছেন না। আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার সাখাওয়াত হোসেন খান।

বুধবার (২৯ মে) প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালত আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ অ্যাডভোকেট সরদার আবুল হোসেন, মিজানুর রহমান ও ওয়াজি উল্ল্যাহ মিয়া। অন্যদিকে রিটকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার সাখাওয়াত হোসেন খান।

এর আগে ৯ এপ্রিল ধর্ম মন্ত্রণালয় চলতি বছরের সমন্বিত হজ চিকিৎসক দল গঠন করে। ১৮৯ জনের এই বহরে চিকিৎসক ৮৫ জন, নার্স ৫৫ জন, ফার্মাসিস্ট ২৪ জন এবং ওটি ও ল্যাব অ্যাসিস্ট্যান্ট ২৫ জন। দলটি পবিত্র হজ পালনে সৌদি আরবে যাওয়া বাংলাদেশি হাজিদের চিকিৎসাসেবা দেবে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ১৬ জুন পবিত্র হজ হতে পারে।

তবে, ৫৫ নার্সের তালিকায় তিনজন নার্সই নন। কারো কারো বয়স বেশি। এছাড়া বিভিন্ন অনিয়ম করে এক বা একাধিকবার চিকিৎসক দলে সৌদি যাওয়া ব্যক্তিদের নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগ তুলে ১২ এপ্রিল দুদক চেয়ারম্যান, স্বাস্থ্য সচিব ও ধর্ম সচিব বরাবর আবেদন করেন জামালপুরের ইসলাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স খান মো. গোলাম মোরশেদ।

বিষয়টি নিষ্পত্তি না করায় তিনি ১৮ এপ্রিল সংশ্লিষ্টদের আইনি নোটিশ দেন। তাতে সাড়া না পেয়ে হাইকোর্ট রিট করেন। শুনানি শেষে ২৮ এপ্রিল হাইকোর্ট রুল জারি করে নয়জনের বিষয়ে সমন্বিত হজ চিকিৎসক দলে থাকার বিষয়টি স্থগিত করেন। এর বিরুদ্ধে দুজন নার্স ও রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করেন।

এরপর ৮ মে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত ‘নো অর্ডার’ আদেশ দেন। ফলে হাইকোর্টের আদেশ বহাল থাকে। আপিল বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের চেম্বার জজ আদালত এই আদেশ দেন।

আদালতে ওইদিন আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল আবু মোহাম্মদ (এ এম) আমিন উদ্দিন। আর রিটকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ব্যারিস্টার সাখাওয়াত হোসেন খান। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল ও অ্যাডভোকেট মো. সালাউদ্দিন।

আইনজীবী সাখাওয়াত হোসেন খান জানান, এরপর সবশেষ আজ হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে দায়ের করা পৃথক দুটি আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে আবেদন খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ।

সর্বশেষ - আইন-আদালত